Advertising
hemel
Advertising
hemel

আজ সোমবার সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিলেন প্রধানমন্ত্রী।

rtv

জানুয়ারি ০৫, ২০১৫

বি এন পি- জামাত জোটে সন্ত্রাস বললেন- প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি আরো বলেন অগ্নি সংযোগ ও বোমাবাজির শিকার হয়ে নিরীহ মানুষ, বাস, ট্রাক সহ সি এন জি যাত্রী, প্রিজাইডিং অফিসার, পুলিশ, বিজিবি, আনসার, সেনা বাহীনির সদস্য এমনকি স্কুলের শিশুও নিহত হয়েছে। আহত হয়ে অনেকেই মানবেতর জীবন যাপন করছে। আমি জামাত বিএনপির নির্মমতার শিকার হয়ে যারা জীবন দিয়েছে তাদেরকে গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্বরণ করছি। তাদের পরিবারের সদস্যদের জানাচ্ছি গভীর সমবেদনা। আহতদের জন্য আমার আন্তরিক সহানুভূতি।

প্রিয় দেশবাসী- ০৫ই জানুয়ারী নির্বাচন বানচাল ও যুদ্ধঅপারাধীদের রক্ষা করতে বি এন পি জামাত জোট সারাদেশে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছিল। তারা শত শত গাড়িতে আগুন দিয়েছে এবং ভাংচুর করেছে হাজার হাজার গাড়ি। মহাসড়ক সহ গ্রামের রাস্তার দুপাশে হাজার হাজার গাছ কেটে ফেলেছে। পুলিশ, বিজিবি, আনসার, সেনাবাহীনি সহ আইন শৃংখলা বাহীনির বিশ জন সদস্যকে হত্যা করেছে। তাদের সহিংস হামলা, পেট্রোল বোমা, অগ্নিসংযোগ ও বোমা নিহত হয়েছে শত শত নিরহ মানুষ ।নির্বাচনের দিন ৫৮২ টি স্কুলে আগুন দিয়েছে। নির্বাচনের আগে আমরা সংলাপে বসার জন্য অনেক চেষ্টা করেছি। সংবিধানের আওতায় নির্বাচন সম্পন্ন করার জন্য আমরা সব ধরনের ছাড় দিতে চেয়েছিলাম। নির্বাচনকালীন সময়ে সর্বদলীয় মন্ত্রীসভা গঠনের জন্য ও আমরা প্রস্তুত ছিলাম। বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নেওয়াটা ছিল একটি রাজনৈতিক ভুল সিদ্ধান্ত। তাদের এই রাজনৈতিক ভুলের খেসারত কেন জনগনকে দিতে হবে?

বি এন পি নেত্রীকে আমি আহবান জানাচ্ছি- নাশকতা, মানুষ হত্যা, বোমা গ্রেনেট হামলা, অগ্নিসংযোগ, যানমালের ক্ষতি করা বন্ধ করতে। আপনার ভূল রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের কারনে আজ আপনি ও আপনার দল সংসদে নেই। আপনি কাকে দোষ দিবেন? আপনার নিজেকেই তো দোষ দিতে হবে? নাশকতার পথ পরিহার করে শান্তির পথে আসুন। দেশের মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের জন্য কি কি করতে চান তা মানুষ কে জানান? নিজের দলকে গড়ে তুলুন তাহলে হয়তো ভবিষ্যতে সম্ভবনা থাকবে। যে পথে আপনি চলছেন তা জনগনের কল্যান বয়ে আনবে না বরং মানুষের বিশ্বাস ও আস্থা আরো হারাবে। মানুষ নিরাপত্তা চায়, শান্তি চায়, উন্নতি চায়। আমরা অসুস্থ রাজনীতির বৃত্ত থেকে বেড়িয়ে আসতে চাই। যে রাজনীতি দেশের জন্য, মানুষের জন্য, কল্যান বয়ে আনে আমরা সেই রাজনীতি করতে চাই।

প্রিয় দেশবাসী- ২০০৮ সালে নির্বাচনী ইশতেহারে আমরা ঘোষনা করেছিলাম যে, ২০২১ সালের মধ্যে দেশকে একটি মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত ও সমৃদ্ধশালী দেশ হিসেবে ঘোষনা করা হবে, ইনশাআল্লা।


Related posts