Advertising
hemel
Advertising
hemel

এবার প্রাথমিকে বৃত্তি পেল সাড়ে ৮২ হাজার শিক্ষার্থী

এবার প্রাথমিকে বৃত্তি পেল সাড়ে ৮২ হাজার শিক্ষার্থী

প্রাইমারি বা প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মাঝে সরকার বৃত্তির জন্য মনোনীত শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রকাশ পেয়েছে। এবার ট্যালেন্টপুল এবং সাধারণ কোটায় বৃত্তি পেয়েছে ৮২ হাজার ৫০০ জন ছাত্র-ছাত্রী। এদের মধ্যে ট্যালেন্টপুলে পেয়েছে ৩৩ হাজার শিক্ষার্থী। তার আগের বছর পেয়েছিল ২২ হাজার শিক্ষার্থী। এর পাশাপাশি সাধারণ কোটায় এবার বৃত্তি পেয়েছে ৪৯ হাজার ৫০০ জন শিক্ষার্থী, যা আগে ছিল ৩৩ হাজার।

আজ মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে প্রাথমিক এবং গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান এই বিষয়ে জানান। বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের প্রকাশ পাওয়া তালিকা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের ওয়েবসাইটে www.dpe.gov.bd পাওয়া যাবে বলে জানান কর্মকর্তারা।

সরকারের গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘এখন সাধারণ কোটায় বৃত্তির সংখ্যা ৪৯ হাজার ৫০০। আর সেই কারনে মোট ৭ হাজার ৯০৬টি ইউনিয়ন/পৌরসভার ওয়ার্ডে গুলোতে ৬টি করে সাধারণ বৃত্তি হিসেবে ৪৭টি হাজার ৪৩৬টি সাধারণ বৃত্তি দেওয়া হয়েছে। ৫০৯টি উপজেলা/থানায় ৪টি করে সর্বমোট ২ হাজার ৩৬টি সাধারণ বৃত্তি দেওয়া হয়েছে। বাকি ২৮টি সাধারণ গ্রেডের বৃত্তির জন্য ৮ বিভাগের শিক্ষার্থীদের ফলাফলের ভিত্তিতে সবগুলো বিভাগ হতে ৩টি করে ২৪টি সাধারণ বৃত্তি দেওয়ার পর অবশিষ্ট ৪টি বৃত্তি এখনও বণ্টন করা হয়নি।

মন্ত্রী আরও জানিয়েছেন, বৃত্তির সাথে সাথে বৃত্তির অর্থের পরিমাণও এ বছর বেড়েছে পূর্বে ট্যালেন্টপুলে মাসে ২০০ টাকা দেয়া হলেও এ বছর দেয়া হবে ৩০০ টাকা। আর সাধারণ বৃত্তিধারীদের মাসে ১৫০ টাকার পরিবর্তে এখন থেকে দেয়া হবে ২২৫ টাকা। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, দেশে এক কোটি ৩০ লাখ শিক্ষার্থীতে উপবৃত্তি দেয়া হয়। ষষ্ঠ হতে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত তিন বছর বৃত্তিপ্রাপ্ত ছাত্র-ছাত্রীরা বৃত্তির টাকা পায়।

তার আগে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বৃত্তি দেয়ার জন্য ভিন্ন করে পরীক্ষা নেয়া হতো। ২০১০ সালে সমাপনী পরীক্ষা চালুর পর সেটার ভিত্তিতেই উপজেলাভিত্তিক এই বৃত্তি প্রদান করা হচ্ছে। বৃত্তিতে শিক্ষার্থীর সংখ্যা এবং অর্থের পরিমাণ বাড়াতে নীতিমালাও নতুন করে সংশোধন করেছে প্রাথমিক এবং গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

Related posts